করোনা জয়ী চেযারম্যানের হৃদয়স্পর্শী স্ট্যাটাস

চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া

কড়চা ডেস্কঃ করোনাকে জয় করেছেন মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ধল্লা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া। করোনাকালে ইউনিয়নের সাধারণ জনগণের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন নিজেই। ৯ জুন শারীরিক ভাবে অসুস্থ বোধ করেন। এরপর ১২ জুন করোনা টেস্টের জন্য নমুনা দিলে তার পজেটিভ রিপোর্ট আসে। শুক্রবার (৩ জুলাই) নেগিটিভ রিপোর্ট আসে। এরমধ্যে দিয়েই তিনি মুখোমুখি হন জীবনের চরম বাস্তবতার। এ বাস্তবতার মধ্যেই তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেন এক হৃদয়স্পর্শী স্ট্যাটাস। স্ট্যাটাসটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

স্ট্যাটাসে চেয়ারম্যান বলেন, মানুষ, মনুষ্যত্ব ও বিকৃত বিবেক সবই পৃথিবী নামক নাট্যশালার একটি অংশ, যা কিনা কোভিড-১৯ নামের দুনিয়া কাঁপানো মহামারিতেও অবস্থানগত জায়গা থেকে কিঞ্চিত বিচ্যুত হয়নি। কোভিড-১৯ আক্রান্ত মানুষগুলোর প্রতি সরকার যে সহনশীলতার বাণী প্রচার করে যাচ্ছে তা রীতিমত প্রশংসনীয়। সর্বোপরি অনেক ভালোর মধ্যেও কিছু পোকা থেকেই যায়। বাস্তব জীবন অনেক কিছু শিক্ষা দেয়।

অসুস্থ সময়ে বহু স্মৃতি, বহু ঘটনা, বহু কষ্ট হৃদয়ে নাড়া দেয় প্রতি মুহূর্তে, প্রতিক্ষণে। স্মৃতিচারণে কখনো কখনো আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়ি। সবই নিয়তির নির্মম পরিহাস। আমার ৬ বছরের অবুঝ মেয়ে যখন বাবার স্পর্শ পেতে দরজার সামনে দাঁড়িয়ে থেকে আঙুল দেখিয়ে বলে আর কয়দিন একা থাকবো বাবা? পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যাওয়া অসুস্থ ছেলে যখন বিছানায় শুয়ে বাবার রোগমুক্তির জন্য প্রার্থনায় মগ্ন থাকে, অসুস্থ মা সারাক্ষণ জায়নামাজে বসে ছেলের জন্য প্রার্থনা করে। অবসর প্রাপ্ত বাবা দিশেহারা কি করবে? আর স্বামীকে সুস্থ করে তুলতে জীবনবাজি রেখে ভয়কে জয় করে নিজেকে শতভাগ উজাড় করে দিয়ে সেবায় ক্লান্ত স্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, ঠিক তখন উত্তর গগনে কাল বৈশাখী মানুষরুপী দানবগুলো হিংস্র হয়ে উঠে। ততক্ষণে নিজে অনেকটাই জীবন্ত লাশ। কোভিড-১৯ বাসা বেঁধেছে শরীরে। হৃদয় থেকে রঙিন পৃথিবী তখন সাদা কাফনের রঙ্গে মুড়িয়ে দিচ্ছে, ক্লান্ত দেহ আর অস্থির মন পৃথিবীর মায়া ভুলে যাচ্ছে। তখনো ক্ষ্যান্ত হয়নি দায়িত্বশীল কিছু মানুষরূপী নরপিশাচ।

আমাকে যেভাবে মানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে। হুমকি দেয়া হয়েছে তা হয়তো ভুলে যাবো। কিন্তু আমার অসহায় নিরীহ সহজ সরল ছাত্র জনতার ওপর যে অন্যায় করা হয়েছে। তা হয়তো সাধারণ জনগণ কোনদিন ভুলবেনা। এটাই নতুন ইতিহাস। শুনেছি বর্ষা কালে নাকি ছাগলেও বাঘের গাল চাটে।

কোভিড-১৯ হয়তো একদিন থাকবে না। আবার এ পৃথিবী ফিরে পাবে সুস্থ জীবনযাত্রা। আলোকিত হবে মানুষের মন। ফিরে পাবে বিশুদ্ধ সুবাতাস। প্রত্যাশা অবিরাম বেঁচে থাকার জন্য। মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। ভালো থাকুক সবাই।

কড়চা/ এম বি

Facebook Comments
ভাগ