সিংগাইরে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃদ্ধ গৃপ্তার

কড়চা রিপোর্ট : মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া ১২ বছরের এক শিক্ষার্থী পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে মা হতে যাচ্ছে। ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই শিক্ষার্থীর মায়ের দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে রোববার (৭ আগস্ট) কারাগারে স্থান হয়েছে অভিযুক্ত মোহন আলীর (৬০) । তার বাড়ি সিংগাইর উপজেলার খাশের চর গ্রামে।

ওই শিক্ষার্থীর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সিংগাইর উপজেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে ১২ বছরের ওই শিক্ষার্থী। চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে উপজেলার একটি বাজারের পাশে গবাদি পশুর জন্য খাদ্য সংগ্রহ করতে যায় ওই শিক্ষার্থী। পূর্ব পরিচিত মোহন আলী কৌশলে ওই শিক্ষার্থীকে স্থানীয় এক ব্যক্তির ছাঁদে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ঘটনা কাউকে বললে ওই শিক্ষার্থীকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয় মোহন আলী। হত্যার হুমকি পেয়ে ওই শিক্ষার্থী বিষয়টি চেপে যায়। কিন্ত তার শারীরিক গঠনের পরিবর্তন হলে তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায় পরিবারের সদস্যরা । চিকিৎসকের পরামর্শে গত ২৮ জুলাই সাভারের একটি ক্লিনিকে ডাক্তারি পরীক্ষার পাশাপাশি আলট্রাসোনোগ্রাফি করা হয়। তখন নিশ্চিত হওয়া যায় শিশুটি ২৪ সপ্তাহ একদিনের অন্তঃসত্ত্বা। পরে ওই শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনা খুলে বলে।

শিক্ষার্থীর মা জানান, তারা অত্যন্ত গরীব মানুষ। নিজেদের কোন জমিজমা নেই। অন্যের বাড়িতে ভাড়া থেকে ঝিয়ের কাজ করেন। স্বামী অন্যের জমিতে কৃষি কাজ করেন। তিন সন্তানের মধ্যে ওই মেয়েটি সবার ছোট। অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর মোহন আলীর বোন ছকিনা ২ হাজার টাকা দিয়ে মেয়ের গর্ভের সন্তান নষ্ট করার কথা বলেছিলো। তিনি বলেন, আমরা তাতে রাজি হইনি। পরে স্থানীয় লোকজনের পরামর্শে ৬ আগস্ট রাতে সিংগাইর থানায় মামলা করা হয়।

সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্যা জানান, ওই শিক্ষার্থীর মায়ের দায়ের করা মামলায় রাতেই অভিযুক্ত মোহন আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন তাকে আদালতে পাঠানো হয়। বিচারক তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। সেই সাথে ওই শিক্ষার্থী ২২ ধারায় ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে জবানবন্দি দিয়েছে।

কড়চা/ বি সি

Facebook Comments Box
ভাগ