ছাত্রলীগ নেতা মিরু হত্যা, পরিকল্পনাকারীর আদালতে স্বীকারোক্তি

কড়চা রিপোর্ট : মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মিরু হত্যার পরিকল্পনাকারী হিমেল মাহমুদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত হিমেল রোববার (২৮ মার্চ) মানিকগঞ্জের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র বিচারক মোহাম্মদ গোলাম সারোয়ারের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে হত্যার পরিকল্পনার কথা স্বীকার করেছেন। আসামি হিমেল মাহমুদ সিংগাইর সরকারি ডিগ্রি কলেজের ছাত্র সংসদের ক্রীড় বিষয়ক সম্পাদক ও পৌরসভার আজিমপুর এলাকার সাইফূল ইসলামের ছেলে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিঙ্গাইর থানার(ওসি) তদন্ত আবুল কালাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাতে ঢাকার লালবাগ থানার শহিদনগর এলাকার একটি নির্মণাধীন ভাড়া বাসা থেকে হিমেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার দেওয়া তথ্য মোতাবেক একটি চাপাতি, একটি দা ও একটি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করা হয়েছে। যেগুলো হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত হয়েছিল।

রোববার দুপুরে তাকে মানিকগঞ্জ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করা হলে বিজ্ঞ আদালতের বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।

প্রসংগত, ১ মার্চ স্থানীয় সংসদ সসদ্য মমতাজ বেগমের বাড়ির গানের অনুষ্ঠান শেষে রাত ১টার দিকে বাড়ি আসার পথে উপজেলা পরিষদের সামনে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মিরুকে কুপিয়ে জখম করে আসামিরা। পরের দিন বেলা ২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পঙ্গু হাসপাতালে মারা যান মিরু। এঘটনায় নিহত মিরুর বড় ভাই রিয়াজুল করিম হিরু সিঙ্গাইর থানায় ১২জনের নাম উল্লেখ করে ও ৪/৫ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন। পুলিশ এ পর্যন্ত হিমেলসহ ৭জনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

কড়চা/ বি সি

Facebook Comments
ভাগ