মানিকগঞ্জের ধলেশ্বরী নদী থেকে সাতটি অবৈধ ড্রেজার জব্দ, জরিমানা, কারাদন্ড

কড়চা রিপোর্ট : মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার দেড়গ্রাম এলাকায় ধলেশ্বরী নদীতে অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলনের দায়ে এক ড্রেজার মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা এবং অন্য একজন মালিকের শ্রমিককে এক মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, সাতটি ড্রেজার জব্দ এবং চার হাজার মিটার ড্রেজারের পাইপ বিনষ্ট করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) বেলা আড়াইটার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করে এই দন্ডাদেশ দেন মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাছলিমা শিরিন।

তাছলিমা শিরিন বলেন, ২০১০ সালের বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন অনুযায়ী সেতু, কালভার্ট, ড্যাম, ব্যারেজ, বাঁধ, সড়ক, মহাসড়ক, বন, রেললাইনসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ও বেসরকারি স্থাপনা অথবা আবাসিক এলাকার এক কিলোমিটারের মধ্যে বালু বা মাটি উতত্তোলন নিষিদ্ধ। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে কিছু ব্যক্তি সরকারি অনুমতি ব্যতিত, দেড়গ্রাম ও জাগীর ধলেশ্বরী সেতু এলাকায় সাতটি ড্রেজার বসিয়ে ধলেশ্বরী নদী থেকে অবৈধভাবে মাটি ও বালু উওোলন করছিলেন। সরকারী আদেশ ও জনস্বার্থে সেখানে অভিযান চালিয়ে সাতটি ড্রেজার জব্দ এবং ড্রেজারের পাইপ বিনষ্ট করা হয়েছে। ড্রেজিং চলাকালে দুইজন ড্রেজার শ্রমিককে আটক করা হয়। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ড্রেজার মালিক রাসেল মিয়াকে বালু মহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০ মোতাবেক এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অর্থদন্ড দিতে ব্যর্থ হওয়ায় অন্য মালিক গফুর শেখের শ্রমিক সবুজ মিয়াকে একমাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

এসময় চার হাজার মিটার ড্রেজারের পাইপ বিনষ্ট করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নদী থেকে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলনের ফলে নদী পাড়ের শত শত বাড়ি-ঘর এবং ধলেশ্বরী সেতু হুমকির মুখে পড়েছিল।

কড়চা/ জেড এ বি

Facebook Comments
ভাগ